কমলনগরে শাশুড়িকে পিটিয়ে আহত করলেন সেচ্চাসেবকলীগ নেতা!

বাবলু বাংলা, ক্রাইম রিপোর্টার, লক্ষ্মীপুর    লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার চর কাদিরা ইউনিয়নে জামাই সেচ্চাসেবক লীগ নেতা কর্তৃক শাশুড়িকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করার খবর পাওয়া গেছে।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, কমলনগর উপজেলার ৮ নং চর কাদিরা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের সরকারি পুকুর পাড়ের দিনমজুর ইউসুফ আলীর স্ত্রী বিবি আমেনা (৫০)কে তারই ঔরসজাত মেয়ে শারমিন আক্তারের স্বামী একই এলাকার নুরুল আমিন মেম্বার বাড়ির ফখরুল ইসলাম এর ছেলে স্থানীয় সেচ্চাসেবকলীগ সেক্রেটারি জিল্লাল (প্রকাশ ডাক্তার জিল্লাল) মিথ্যা সাক্ষী না দেয়াকে কেন্দ্র করে শাশুড়িকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এতে শাশুড়ির মাথা পেটে যায়। বর্তমানে আহত বিবি আমেনা কমলনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থিতাদের নির্বাচন করাকে কেন্দ্র করে জিলাল ও একই এলাকার সরকারি পুকুর পাড়ের কাদেরের সাথে বাকবিতন্ডা হয়।

পরে এই নিয়ে স্থানীয়ভাবে সমাধান করেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ বেলাল হোসেন। উক্ত বৈঠকে মিথ্যা সাক্ষী না দেয়াকে কেন্দ্র করে জিল্লাল তার শাশুড়িকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন। এতে বিবি আমেনার মাথা ফেটে যায়। বর্তমানে বিবি আমেনা কমলনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
এসময় জিল্লাল দেশীয় বড়ো ক্রিজ নিয়ে শ্বশুর তাহেরকেও মারতে যান। শ্বশুর ভয়ে পালিয়প জীবন বাঁচান বলে এ প্রতিবেদককে জানান।

আহত শাশুড়িকে হাসপাতালে এসেও জিল্লাল হুমকি ধমকি দিয়ে বলেন – চরকাদিরার দিকে এলে পা কেটে ফেলবো। এসময় জানে মেরে ফেলারও প্রকাশ্যে হাসপাতালে হুমকি দেয়। যা অন্যন্য রোগীরাও সাক্ষি দেয়।

জানা গেছে জিল্লাল নেশা করেন, মেয়েদের নানা প্রলোভনে ফেলে দৈহিক সম্পর্ক করেন। দাম্পত্যজীবনে জিল্লাল ২সন্তানের বাবা হলেও সে চরিত্রহীন বলে এলাকায় সবাই বলেন। অনেকে তার ভয়ে মুখ খোলার সাহসও করেন না।

আহত বিবি আমেনার স্বামি বলেন -` আমি দেড় লাখ টাকা খরচ করে শারমিনকে ভোলায় বিয়ে দিয়েছি। আমার বাড়ীতে শারমীন বেড়াতে এলে জিল্লাল তাকে প্রলোভন দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে। আমি ব্রীক ফিল্ডে কাজ করি। এ সুযোগে জিল্লাল মেয়েটার পেটে বাচ্চা দিলে সামাজিক লোকেরা শালিশ করে আগের স্ত্রী থাকা শর্তেও বিয়ে পড়িয়ে দেন। এখন সে আমার পুরুষাঙ্গ কেটে কুকুরকে খাওয়াবে বলে, আমাকে শালা বলে মারতে ছোরা হাতে দৌড়ায়ে আসে। আমি এর বিচার চাই।’

এবিষয়ে অভিযুক্ত জিল্লাল ঘটনাটি সম্পর্কে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন -আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।

কমলনগর থানার ওসি ইকবাল বলেন – অভিযোগ পেলে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

About alokitonoakhali