কিশোরগঞ্জে ৪৪৪০ স্কুলবর্হিভূত শিশুর মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে ডাম জয়ফুল প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত


কিশোরগঞ্জ জেলায় স্কুল বহির্ভূত শিশুদের প্রাথমিক ও নিন্ম মাধ্যমকি শিক্ষায় অভিগম্যতা নিশ্চিত ও মানসম্মত শিক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন (ডাম) দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছে। রিচ আউট টু এশিয়া (রোটা) এর আর্থিক সহযোগিতায় অক্টোবর ২০১৭ইং থেকে কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা ও মিঠামইন উপজেলায় ৩ বছর মেয়াদি জয়ফুল প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। কিশোরগঞ্জে ৪৪৪০ স্কুলবর্হিভূত শিশুর মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ ও প্রকল্পের কার্যক্রম জেলা প্রসাশনকে অবহিত করার লক্ষ্যে ৯ মে ২০১৮ বুধবার কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ডামের উপদেষ্টা এবং প্রশাসন ও মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক সৈয়দ মুস্তাফীজুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামিল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) গোলাম মোহাম্মদ ভূইয়া, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবদুল্লাহ আল্ মাসউদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্যে জয়ফুল প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক এবিএম সাহাব উদ্দিন বলেন, ইটনা ও মিঠামইন উপজেলার স্কুল বর্হিভূত শিশুদের উপানুষ্ঠানিক পদ্ধতিতে প্রাথমিক ও নিন্ম মাধ্যমিক শিক্ষা প্রদান করা হবে। এছাড়াও ১৫৩০ যুবাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রকল্পটি কাজ করবে। সকলের আন্তরিক সহযোগিতার আশাকরি জয়ফুল প্রকল্প তার লক্ষ্য পূরণে এগিয়ে যাবে এবং এসডিজির শিক্ষা গোল অর্জনে সহায়তা করবে।
কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামিল বলেন প্রতিটি শিক্ষাকেন্দ্রে সরকারের পক্ষ থেকে বই প্রদান করা হচ্ছে। সরকারি শিক্ষা প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিগণ ডামের কার্যক্রমের প্রতি নজর রাখলে শিক্ষা কার্যক্রম আরো ফলপ্রসু হবে। সরকারের শিক্ষা লক্ষ্য অর্জনে সুযোগ সুবিধা প্রয়োজনমতো প্রদান করা হবে।
সভার প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন বিশ্বের মধ্যে একটি অনন্য সেচ্ছাসেবী সংস্থা যারা কিশোরগঞ্জে গুনগত শিক্ষা প্রদানে কাজ করছে। হাওড় অঞ্চলে গুনগতমান বজায় রেখে উপানুষ্ঠনিক শিক্ষায় ডাম কাজ করবে বরে আশা রাখি। হাওড়ে বর্ষা মৌসুমে শিক্ষার্থীদের নৌকায় যাতায়াতের সুবিধা দিলে শিক্ষার্থী উপস্থিতি আরো বাড়ানো যাবে। কমিউনিটিকে সিএলসিগুলোকে তাদের নিজেদের প্রতিষ্ঠান মনে করে পরিচালনার দ্বায়িত্ব নিতে হবে। তাহলেই উপানুষ্ঠনিক শিক্ষার স্থায়িত্বশীলতা আসবে।
সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, ডাম উপানুষ্ঠানিক শিক্ষায় যে মান অর্জন করছে তা সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চায়। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষায় ডামের মাল্টিগ্রেড মডেল ইতোমধ্যে দেশে ও বিদেশে কার্যকরী মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দেশের শিক্ষা অগ্রগতিতে সরকারের সাথে ডাম অবদান রাখতে কাজ করছে।
অবহিতকরণ সভায় প্রল্পের উপসস্থাপনা শেষে স্কুল বহির্ভূত শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষায় অভিগম্যতা নিশ্চিত, মানসম্মত শিক্ষা প্রদান, শিক্ষার্থীদের সৃজনশীলতা বৃদ্ধি ইত্যাদি কারিগরিদিক নিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, এনজিও প্রতিনিধি, শিক্ষা কর্মী এবং অভিভাবকগন তাদের মতামত তুলে ধরেন।
সভায় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডাম-সেকেন্ড চান্স প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোদাচ্ছের হোসেন, জয়ফুল প্রকল্পের মনিটরিং এন্ড ইভালুয়েশন কোঅর্ডিনেটর শেখ শফিকুর রহমান, ডামের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক হারুন-অর রশিদ, মনিটরিং কর্মকর্তা মোঃ রিপন উদ্দিন খান, ইটনা ও মিঠামইন উপজেলা প্রসাশনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, রাজনৈতিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, বিভিন্ন পেশাজীবি সমাজের প্রতিনিধি, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষা উৎসাহী ব্যক্তিবর্গ। অবহিতকরণ সভাটি উপস্তাপন করেন জয়পুল প্রকল্পের ইটনা উপজেলার এলাকা ব্যবস্থাপক অশোক কুমার ঘোষ।
উল্লেখ্য যে, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন চলতি শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রকল্পসমূহের আওতায় বাংলাদেশে ২৯ জেলার ৭৯টি উপজেলায় ৫,৪৬০২৩ জন শিক্ষার্থীকে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা সেবা প্রদান করছে।

Facebook Comments

About editor

x

Check Also

নিকারাগুয়ায় বিক্ষোভে নিহত ১৯৭ জন, বিরোধী দলকে দায়ী করছে সরকার

অনলাইন ডেস্ক: নিকারাগুয়া সরকার দেশটিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালানোয় এবং প্রেসিডেন্ট ড্যানিয়েল ওর্তেগার বিরুদ্ধে প্রায় চার মাস ধরে আন্দোলন চলাকালে ১৯৭ জন নিহত ...