নোবিপ্রবিতে হাল্ট প্রাইজের ফাইনাল অনুষ্ঠিত


নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা (নোবিপ্রবি) হাল্ট প্রাইজ ২০১৯-এর গ্রান্ড ফাইনাল বুধবার (৫ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত হয়। নোবিপ্রবি ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন সায়েন্স (আইআইএস)-এর আয়োজন করে। আজ সকালে বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোবিপ্রবি’র উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান।

অন্যদের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন নোবিপ্রবি কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, আইআইএস’র পরিচালক ড. আবদুল্লাহ-আল মামুন, হাল্ট প্রাইজের আহ্বায়ক শামীমা ইয়াসমিন, জুরিবোর্ড সদস্যগণ, বিভিন্ন রাউন্ডের বিচারকগণ, নোবিপ্রবি আইআইএস ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-ছাত্রছাত্রীবৃন্দ প্রমুখ।

হাল্ট প্রাইজ ২০১৯-এর গ্রান্ড ফাইনালে বিজয়ী হওয়ার গৌরব অর্জন করে নোবিপ্রবি অর্থনীতি বিভাগের ‘টিম রোড ওয়াডেন’। বিজয়ী টিম নিজেদের আইডিয়াকে উপস্থাপন করতে এবার যাবে মালয়েশিয়া। প্রতিযোগিতায় রানার আপ হয় ‘কমপ্লেসেন্সি’ টিম। বিজয়ী দল তাদের বিজনেস আইডিয়া বাস্তবায়নের জন্য পাবে ১ বিলিয়ন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮ কোটি টাকা।

নোবিপ্রবি থেকে হাল্ট প্রাইজ-এর উদ্যোক্তা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে পাঁচ শতাধিক টিম। প্রাথমিক বাছাই শেষে নির্বাচন করা হয় ২২টি টিম। যেখান থেকে সেমিফাইনাল রাউন্ডে চূড়ান্ত পর্যায়ের জন ৫টি টিম নির্বাচন করা হয়। নোবিপ্রবিতে হাল্ট প্রাইজের কনভেনর হিসেবে ছিলেন ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শামীমা ইয়াসমিন ও মেন্টর সহকারী অধ্যাপক উম্মে হাবিবা, প্রভাষক রাজেশ কুমার দাস, মো: ইমদাদুল ইসলাম এবং মো: আবদুল করিম প্রমুখ।

ক্যাম্পাস ডিরেক্টর ছিলেন ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন সায়েন্সেসের ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থী তৌহিদুর রহমান আদিল।

প্রসঙ্গত, হাল্ট প্রাইজ জাতিসংঘ, ক্লিনটন ইনিসিয়েটিভস এবং হাল্ট ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস স্কুলের যৌথ আয়োজন। যা বিশ্বের একশর অধিক দেশে আয়োজিত সবচেয়ে বড় উদ্যোক্তা প্রতিযোগিতা, যেখানে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করেছে নোবিপ্রবি। হাল্ট প্রাইজের চ্যালেঞ্জ ছিল দশ বছরে দশ হাজার লোকের কর্মসংস্থান তৈরি করা যায় এমন ব্যবসায় উদ্যোগের সৃষ্টি করা।

About alokitonoakhali