নোয়াখালীতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘে ভাংচুর ও আগুন


নোয়াখালী সদর উপজেলার দাদপুর ইউনিয়নে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের অফিসের আসবাবপত্র ভাংচুর করে আগুন দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা।

মঙ্গলবার গভীর রাতে ওই ইউনিয়নের বারাহীর দিঘির পাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও স্থানীয় সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর ছবি জ¦লসে যায়।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জানায়, মঙ্গলবার গভীর রাতে একদল দুবৃর্ত্ত বারাহীর দিঘির উত্তর পাড়ের বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের অফিসে হামলা চালিয়ে প্রথমে আসবাবপত্র ভাংচুর করে। তারপর ওই অফিসে আগুল লাগিয়ে দেয়। এতে অফিসে ঝুলানো বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও স্থানীয় সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর ছবি পুড়ে যায়। পরে তারা কয়েকটি ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে চলে যায়।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান শিপন অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ স্থানীয় জহিরের সাথে তার বিরোধ চলে আসছে। ওই বিরোধের জের ধরে জহির বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীদের সাথে হাত মিলিয়ে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের অফিস ভাংচুর করে বঙ্গবন্ধু এবং এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর ছবিতে আগুন লাগিয়ে দেয়।

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের অফিস ভাংচুর ও আগুন দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য জহির উদ্দিন জানান, শিপনের লোকজন তার অফিসে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে এবং তার সাথে বিএনপি-জামায়াতের কোন সখ্যতা নেই।

সুধারাম মডেল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, দাদপুরে শিপন এবং জহিরের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। ওই বিরোধকে কেন্দ্র করেই অফিস ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে অভিযোগ ফেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘের অফিস ভাংচুর ও আগুনে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় বর্তমানে করে ওই এলাকায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

About alokitonoakhali