মা জেগে দেখেন তার শিশু নেই, পরে ৫ লাখ টাকার মুক্তিপণ দাবি

লক্ষ্মীপুরে দেড় বছরের এক শিশুকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন তার মা-বাবা। হঠাৎ রাতে ঘুম ভেঙে গেলে মা দেখেন শিশুটি তার পাশে নেই। দোচালা টিনের ঘরের দরজাটিও খোলা। তার ব্যবহৃত মোবাইলফোন সেটটিও নেই।
এদিকে, ওই মোবাইল সেটের নাম্বার থেকে শিশুর বাবার কাছে কল আসে। শিশুটিকে ফিরে পেতে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে দুর্বৃত্তরা।
রোববার (৪ আগস্ট) গভীর রাতে সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের লাহারকান্দি গ্রামের এলাহি বক্সের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা কৌশলে ওই বাড়ির দম্পতি মামুন হোসেন ও কহিনূর আক্তারের ঘরে ঢুকে তাদের ছোট্ট শিশু মিনহাজকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।
খবর পেয়ে সোমবার (৫ আগস্ট) সকালে ওই বাড়িতে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনোয়ার হোসেন ও লাহারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুশু পাটোয়ারী পরিদর্শনে গেছেন।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো শিশু মিনহাজকে নিয়ে রাজমিস্ত্রি মামুন ও তার স্ত্রী কহিনুর ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়ে। হঠাৎ রাত তিনটার দিকে ঘুম ভাঙলে দেখে তাদের সন্তান মিনহাজ পাশে নেই। ঘরের দরজা খোলা। পরে তারা চতুর্দিকে খোঁজ-খবর নিয়েও মিনহাজের সন্ধান পাননি।
ওই শিশুর বাবা মামুন হোসেন বলেন, ‘আমার ছেলেটিকে খুঁজে পাচ্ছি না। কে বা কারা তাকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। একইসময় আমার স্ত্রীর মোবাইলফোন সেটটিও নিয়ে যায়। ওই মোবাইল নাম্বার থেকে আমার ছেলেকে ছেড়ে দেবে বলে ৫ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারীরা। তবে তাদের পরিচয় দেয়নি।’
লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, ‘ঘটনাটি দুঃখজনক। কে বা কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে তা জানা যায়নি। ঘটনাটি আমরা গুরুত্ব দিয়ে দেখছি।’