লক্ষ্মীপুর দালাল বাজার উপশহরে নির্যাতিত ত্যাগী নেতা সাবেক যুবলীগের আহবায়ক “হাজী মো.সোলেমান হাওলাদার”

আলোকিত নোয়াখালী: Senior Editor | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ১২. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | বুধবার

লক্ষ্মীপুর দালাল বাজার উপশহরে নির্যাতিত ত্যাগী নেতা সাবেক যুবলীগের আহবায়ক “হাজী মো.সোলেমান হাওলাদার”

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : আমজাদ হোসেন
লক্ষ্মীপুর ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড এর জাবেদ উল্ল্যাহ হাওলাদার বাড়ির গণি মিয়া হাওলাদার এর ৩ মেয়ে ৫ ছেলের মধ্যে হাজী মো. সোলেমান হাওলাদার ৩য় সন্তান । “জান্নাত ট্রেডার্স ” এর স্বত্তাধিকারী, হাজী মো.সোলেমান হাওলাদার ১৯৯২ সালে ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়ন যুবলীগের একজন সাধারণ কর্মী ছিলেন । তারপর তিনি ১৯৯৮ সালে সৌদি আরব এ চলে যান । সৌদি আরব থেকে নিজ দেশে ফিরে এসে ২০০১ সালে তিনি সরকারি নির্বাচনে কর্মীর দায়িত্ব পালন করেছেন। পরবর্তীতে ২০১২ সালে ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক এর দায়িত্ব পালন করেন । আহবায়ক এর দায়িত্বে থাকার সময়ে হঠাৎ একদিন বিরোধী দলীয় পার্টির আধাবেলা হরতাল চলাকালে তিনি ওইদিন হরতালের সময় তার ছেলেকে স্কুল থেকে নিয়ে আসতে গেলে হরতাল দলীয় সমর্থকরা তাকে এবং তার ছেলেকে মারধর করে এবং তার মটরসাইকেল ভাংচুর করে । তখন তিনি মামলা করার প্রস্তুতি নিলে তার নেতা এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন মামলা দায়ের না করতে তাকে নিষেধ করেন , ২০১৪ সালে সরকারি নির্বাচনের ৫ দিন আগে তাকে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করার কারণে অন্য পার্টির নেতারা তাকে মারধর করে তার মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়, ২০১৮ সালে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে তাকে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করে ফাঁসানো হয়েছে , এবং, সে মিথ্যা মামলায় তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে তাকে প্রায় ৫০ দিন যাবৎ জেল খাটতে হয় । সে মিথ্যা মামলার হাজিরা এখনও আদালতে তাকে দিতে হয় । অথচ , ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়নে রাজনীতি করার সময় যুবলীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী নিজ হাতেই গড়ে তুলেছেন  এ ত্যাগী নেতা । কখনো নিজের স্বার্থে কাজ  করেননি , দলের স্বার্থে কাজ করেছেন , তিনি মাতৃভূমির খবর পত্রিকার সাংবাদিককে এক সাক্ষাৎকারে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, যুবলীগের জন্য কি না করেছি, এখন আর দলীয় নেতারা আমার কোন খোঁজ খবর রাখে না, আপনি দলীয় নেতাদের খোঁজ খবর রাখেন কি না , সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি বর্তমানে দলীয় কোন পদে না থাকলেও আমি নিজ দলীয় সংগঠনের যেকোনো প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের জন্য শুটে যায় । এখন বর্তমানে কি করেন, সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,আমি বর্তমানে ব্যাবসা করি, আমার দালাল বাজার নারিকেল হাটা মিডল্যান্ড ব্যাংকের পাশে (জান্নাত ট্রেডার্স) নামের একটি রড সিমেন্টের দোকান আছে । তিনি আরো বলেন, আমার ১ ছেলে, ১ মেয়ে , আমি ১ বার হজ্ব করেছি, একাধিকবার ওমরাহও পালন করেছি আপনি এখন কি চান, প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,আমি চাই সমাজে সবাই জেনো মিলেমিশে থাকতে পারে, আমরা একে অপরের ভাই ভাই , আমরা একে অপরের বিপদে আপদে সহযোগিতা করবো । এ আশায় ব্যাপ্ত করি । হাজী মো.সোলেমান এর মতো এখনও অনেক যুবলীগের ত্যাগী নেতা আছে , যাদের কোনো রকমও মূল্যায়ন করা হয় না  । লক্ষ্মীপুরে আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন বিভিন্ন পেশাজীবীর লোকজন ।

এই বিভাগের আরো খবর Posts