সেনবাগে চাঁদাবাজির মামলায় ফিরোজ মেম্বার গ্রেফতার


মোঃইব্রাহিম সেনবাগ নোয়াখালী প্রতিনিধি।
সেনবাগের মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ রাজারামপুরে সরকারী আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘরনির্মান ও জয়নাল চেয়ারম্যান সড়কের নির্মানাধীন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় স্হানীয় যুবলীগ নেতা দুলাল (২৭) কে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা মামলায় পুলিশ ফিরোজ মেম্বার কে গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার রাত ৯ টায় সেনবাগ থানার এসআই সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেন।
সেনবাগ থানার ওসি শুক্রবার রাত পৌনে ১১ টায় ফিরোজ মেম্বারকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
স্হানীয়রা জানান, সম্প্রতি মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতা ফিরোজ আলমের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী পারভেজ, সুমন রবিন,মন্নান সহ ১০/১২ জন সন্ত্রাসী দুলালকে দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা দুলালের বসত ঘরে হামলা, ভাংচুর চালিয়েছে। পরে বেশ কয়েকটি হাত বোমার বিস্ফোরন ঘটিয়ে আতংক সৃষ্টিকরে তারা পালিয়ে যায়। গুরুত্বর আহত যুবলীগ নেতা দুলালকে রক্তাক্ত অবস্হায় স্হানীয় লোকজন উদ্ধার করে সেনবাগ সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেছে।
যুবলীগনেতা দুলাল জানান, হরলদীঘির পাড়ে রিক্সাচালক মাবুল হকের স্ত্রী বিবি হালিমাকে আশ্রায়ন প্রকল্প থেকে এক লক্ষ টাকা ব্যয়ে বিনামূল্যে উপজেলা প্রশাসন একটি ঘর করে দেয়। আর ঘরটি বরাদ্দ এনে দিয়েছেন আওয়ামীলীগ নেতা ফিরোজ মেম্বার এ দাবী করে হালিমাকে ১০ হাজার টাকা চাঁদার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। গরীব অসহায় রিক্সাচালকের স্ত্রী বিষয়টি স্হানীয় লোকজন কে জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে মেম্বার ফিরোজ সহ তার ক্যাডার বাহিনী । গত ১২ই জানুয়ারী বিবি হালিমা চাঁদাবাজির বিষয়টি লিখিত ভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে জানালে তিনি প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। সোমবার ওই এলাকার এলজিইডির একটি পাকাকরন রাস্তার উন্নয়ন কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানে একই সন্ত্রাসীরা ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করলে যুবলীগ নেতা দুলারের নেতৃত্বে স্হানীয় লোকজন চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে অবস্হান নিলে রাতে তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
চট্রগ্রাম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আমির আলী হাজী বাড়ীর ছাত্রলীগ নেতা এমরান হোসেন জানান, রাত ১২ টার দিকে একই সন্ত্রাসীরা তার বাড়ীতে অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে থাকে এবং বোমা ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক মো: হারুনুর রশিদ চাঁদাবাজির বিষয়টি গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।
হালিমার দায়েরকৃত চাঁদাবাজির অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা উপজেলা প্রকল্পকর্তা আবুবকর জানান, তদন্তকালে চাঁদাবাজির বিষয়টির সত্যতা মিলেছে।
অপরদিকে, ৪ ফেব্রুয়ারি শ্রীপর্দ্দী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে স্কুলের সামনে থেকে স্হানীয় আজাদ ও কোম্পানীগন্জের কামাল জোরপূর্বক অপহরন করে ফিরোজ মেম্বারের বসতঘরে আটকিয়ে রেখে নির্যাতন চালায়। পরে অপহৃতা স্কুল ছাত্রীর পিতা দীনমোহাম্মদের দায়ের করা অপহরন মামলার সূত্রধরে সেনবাগ থানা পুলিশ ফিরোজ মেম্বারের ঘর থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার ও দুই অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেন।
এব্যাপারে স্হানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা রুহুল আমিন গনমাধ্যমকে জানান, অপরাধী যেই হোক তাদের আইনের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।
স্হানীয় লোকজন জানান, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি ইয়াবা ব্যবসা ,অস্ত্র সহ নানা অপরাধে জড়িত রয়েছে।

About alokitonoakhali