সাম্প্রতিক




চাপ দিয়ে লাভ নেই, মাঠ ছাড়ব না : ইশরাক

আলোকিত নোয়াখালী: Senior Editor | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৪. জানুয়ারি. ২০২০ | শনিবার

চাপ দিয়ে লাভ নেই, মাঠ ছাড়ব না : ইশরাক

বিএনপিসমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীকে গ্রেফতার করে নির্বাচনের মাঠ থেকে সরে যেতে চাপ দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন।

রাজধানীর গোপীবাগে সাদেক হোসেন খোকা কমিউনিটি সেন্টারে শুক্রবার দুপুরে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন। ইশরাক বলেন, চাপ সৃষ্টি করে লাভ নেই। আমরা কোনোভাবেই ভোটের মাঠ ছেড়ে যাব না। জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় শেষনিঃশ্বাস পর্যন্ত লড়ে যাব। শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ভোটের মাঠে থাকব।

দক্ষিণ সিটির ৩২নং ওয়ার্ডে বিএনপিসমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী তাজউদ্দীন আহমেদ তাইজুলকে বৃহস্পতিবার বিকালে গ্রেফতার করে বংশাল থানা পুলিশ। এ বিষয় এবং আরেকটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরকে হুমকি দেয়ার অভিযোগ নিয়ে ইশরাক রিটার্নিং কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করতে যান।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ইশরাক বলেন, রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দাবি জানিয়েছি, এখন থেকে নির্বাচন পর্যন্ত যারা কাউন্সিলর প্রার্থী, তাদের যেন গ্রেফতার করা না হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তা পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। তবে ব্যবস্থা না নেয়া পর্যন্ত আশ্বস্ত হতে পারছি না।

ইশরাক হোসেন বলেন, পরিকল্পিতভাবে ভয়ভীতি সৃষ্টি করতে, আমাদের মাঠ থেকে সরে যেতে চাপ প্রয়োগ করতেই এটি (তাইজুলকে গ্রেফতার) করা হয়েছে। কিন্তু আমি দৃঢ়কণ্ঠে বলতে চাই, এগুলো করে আমাদের সরানো যাবে না। আমাদের মনোবল আরও শক্ত হচ্ছে, কোনোভাবেই মাঠ ছেড়ে যাব না। তিনি বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। আমার বাবা একাত্তরে জীবনবাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে নেমেছিলেন। আমিও সেই আদর্শে বিশ্বাসী। আমিও জনগণের অধিকার আদায়ে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়ব এবং মাঠে থাকব।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী বলেন, নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো প্রার্থীকে গ্রেফতার না করতে আমরা সরকারকে অনুরোধ করেছিলাম। কোনো আশ্বাস এখনও আমাদের দেয়া হয়নি। আমাদের দাবি ছিল, যারা কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন নির্বাচন পর্যন্ত তাদের গ্রেফতারের বিষয়ে একটি সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা নির্বাচন কমিশন থেকে আসুক। কারণ, আপনার জানেন বিভিন্ন রাজনৈতিক ও গায়েবি মামলা দিয়ে প্রতি নির্বাচনের আগেই আমরা যারা বিরোধীদলীয় প্রার্থী, তাদের হয়রানি করা হয়। গত জাতীয় নির্বাচনের আগেও এ চিত্র আমরা দেখতে পেয়েছি।

ইশরাক হোসেন বলেন, রিটার্নিং অফিসার আমাদের বলেছেন অভিযোগগুলো লিখিতভাবে জমা দিতে। আমরা মৌখিকভাবে যে অভিযোগগুলো দিয়েছি, সেটির বিষয়ে তিনি পদক্ষেপ নেবেন। আমরা আশ্বস্ত হতে পারছি না। কোনো পদক্ষেপ নেয়ার পরই আশ্বস্ত হতে পারব।

ডিএসসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপির মেয়র প্রার্থী দু’জন কাউন্সিলরের বিষয়ে তার কথা মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। লিখিত অভিযোগ দিলে অবশ্যই বিষয়টি খতিয়ে দেখব। আবদুল বাতেন বলেন, সুনির্দিষ্ট মামলায় কারও বিরুদ্ধে পরোয়ানা থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে হয়রানির উদ্দেশ্যে কোনো প্রার্থীকে প্রচারে বাধা দিলে তা হবে অনাকাক্সিক্ষত। এমনটা করতে দেয়া হবে না। অতি উৎসাহী হয়ে কেউ প্রার্থীদের প্রচারে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এই বিভাগের আরো খবর Posts