সাম্প্রতিক




দলের জন্য জীবন দিতে পারি লক্ষ্মীপুরে আওয়ামী নেতা রহমান

আলোকিত নোয়াখালী: alokitonoakhali | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৯. জানুয়ারি. ২০২০ | বৃহস্পতিবার

দলের জন্য জীবন দিতে পারি লক্ষ্মীপুরে আওয়ামী নেতা রহমান

ভি বি রায় চৌধুরী: পঁয়ত্রিশ বছর বঙ্গবন্ধুর গড়া বাংলাদেশ আওয়ামী পরিবারের কর্মী হিসেবে তৃর্নমূল আ’লীগকে শক্তিশালী করার চেস্টা করে যাচ্ছি। এতে বেশির ভাগ সময় আমাকে প্রতিকূল রাজনৈতিক পরিবেশ-পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়েছে। এসময় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের দ্বারা একাধিকবার শারীরিক নির্যাতন ও বহু মিথ্য মামলায় জেল-জুলুম হয়রানির শিকার হই। জীবন বাচাঁতে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে থাকতে হয় বছরের পর বছর। বর্তমানে দলের জন্য প্রয়োজনে আমি নিজের জীবন দিতে প্রস্তুত আছি বলে গণমাধ্যমকে জানান লক্ষ্মীপুরের কুশাখালী ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান।
তৃর্নমূল আ’লীগের এ নেতা নিজের প্রতিকূলতাপূর্ন পঁয়ত্রিশ বছরের আওয়ামী রাজনীতির বর্ননায় সাংবাদিকদের জানান, আমি রাজনীতি করি দেয়ার জন্য, কিছু পাওয়ার জন্য নয়। ১৯৮৬ সনে দাশেরহাট রুপাচরা শফিউল্লা উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি হয়ে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে দলকে সংঘটিত করি। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯২ পর্যন্ত ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আ’লীগের নানান পদে থেকে দলের জন্য কাজ করি। ১৯৯৭ সনে জনগনের ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়ে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হই। এছাড়া এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বহুবার ব্যবস্থাপনা পর্ষদের নানান পদে থেকে সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করি। ২০১২ সনে কাউন্সিলের মাধ্যমে ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে এখন পর্যন্ত দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর গড়া বাংলাদেশ আ’লীগের ভবিৎষ্যতে যদি বিপদ আসে তাহলে শেখ হাসিনার জন্য নিজের জীবন দিতে সব সময় প্রস্তুত আছি।
লক্ষ্মীপুরের কুশাখালী ইউনিয়ন আ’লীগের ত্যাগী নেতা আবদুর রহমান গণমাধ্যমকে আরো বলেন, ১৯৯৬ সনের বিতর্কিত ১৫ ই ফেব্রুয়ারীর ৫ম সংসদ নির্বাচন ঠেকাতে গেলে প্রতিপক্ষ বিএনপি’র ক্যাডাররা আমার মাথা ফাটিয়ে দেয়। ২০০১ সনের সংসদ নির্বাচন পরবর্তী সময়ে আমি সহ কুশাখালি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের ৭৭ জন নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক কারনে ৮ টি মিথ্যা মামলা হয়। এসময়ে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের অত্যাচারে প্রায় পাচঁ বছর পালিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করি। একারনে পরিবারের ভরনপোষণ এবং মামলা-হামলা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য নিজের পৈত্রিক সম্পত্তিও হারাতে হয়েছে বলে তিনি জানান।
এব্যাপারে কুশাখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি নুরুল আমিন বলেন, আবদুর রহমান আ’লীগের একজন ত্যাগী নেতা হিসেবে নাজুক অর্থনৈতিক অবস্থায় মধ্যে তিনি জরাজীর্ণ বহু পুরাতন টিনের ঘরে বসবাস করেও বর্তমানে দলের জন্য কাজ করে চলেছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম চৌধুরী বলেন, সত্যিকার অর্থে আব্দুর রহমান দলের জন্য একজন নিবেদিত প্রান।
এব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডঃ নুরুদ্দিন চৌধুরীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,আব্দুর রহমান নানা প্রতিকূলতার মাঝে নিঃস্বার্থ ভাবে দীর্ঘদিন যাবৎ দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

এই বিভাগের আরো খবর Posts