সাম্প্রতিক




নোয়াখালীতে স্ত্রীর অনৈতিক তথ্য ফাঁস করায় স্বামীকে হত্যার হুমকি পর্ব: ১

আলোকিত নোয়াখালী: Senior Editor | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ১৩. সেপ্টেম্বর. ২০২০ | রবিবার

নোয়াখালীতে স্ত্রীর অনৈতিক তথ্য ফাঁস করায় স্বামীকে হত্যার হুমকি পর্ব: ১

আলোকিত নোয়াখালী ডেক্স:
দীর্ঘদিন ধর অনৈতিক ও অসামাজিক কাজ করে ফাঁসানোর ব্যবসায় লিপ্ত সুফিয়া আক্তার। সে নানা ধরনের কৌশলে ফাঁদে ফেলে জনৈক মোঃ ইউসুফ কে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করে সাথে চালিয়ে যাচ্ছে অনৈতিক কাজ ও পর্ণগ্রাফি ব্যবসা। এই তথ্য স্বামী মোঃ ইউসুফ জেনে যাওয়ায় এখন তাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধামকি ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে রীতিমত। এই সুফিয়া আক্তারের রয়েছে বিশাল এক চক্র। যে চক্রের হাতে আজ ইউসুফ বড় অসহায়। ইউসুফ একজন সরকারী কর্মচারী। তার কাছ থেকে হাতিয়ে নিতে চায় কাড়ি কাড়ি টাকা। না হলে ইউসুফকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করবে বলে জানান। সুফিয়া আক্তারের চক্র ডনমাদার সুফিয়া আক্তার বিভিন্ন পরপুরুষের সাথে অবাধে মেলামেশা এবং পৰ্ণগ্রাফি তৈরী করে চালিয়ে যাচ্ছে দেহ ব্যবসা। এর প্রতিবাদ করতে গেলে সুফিয়া আক্তার ইউসুফের উপর খেপে যায়। এখন হুমকি দিচ্ছে যদি আমার এই গোপন ভিডিও বা ভয়েজ রেকর্ড তুই আইন প্রয়োগকারী সংস্থা বা মিডিয়ার কাছে তুলে ধরিস তাহলে তোর বংশ আমি ধ্বংস করে দিবো। এমন অবস্থা করবো সমাজের কোথাও তোরা মুখ দেখাতে পারবি না। এইসব জ্বালা সইতে না পেরে ইউসুফ দারস্থ হয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, মিডিয়া ও বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমের কাছে। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ৩নং জিততলী ইউনিয়নের মেয়ে সুফিয়া আক্তার, পিতা- বেলাল হোসেন, মাতা- জাহানারা বেগম। সে দুর্ধর্ষ পাপিয়াকে ও ড. সাবরিনাকে হার মানিয়েছে প্রতারক সুফিয়া আক্তার। এদের জন্য আজ সমাজে অসামাজিক কলহ লেগে আছে। পুরুষ জাতি হচ্ছে সামাজিকভাবে লাঞ্চিত। এদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠিন থেকে কঠোর শাস্তির বিধান করতে হবে। তা না হলে ইউসুফের মত হাজারো পুরুষ সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হবে। এমন ঘটনা বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্রই ঘটছে। শুধুমাত্র এই মোবাইলের কারণে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ম্যাসেঞ্জার, ইউটিউব, দিনের পর দিন অসামাজিক কার্যক্রম বেড়েই চলেছে। এতে পরিত্রান থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও সাইবার ক্রাইম আইনকে আরো শক্তিশালীভাবে প্রয়োগ করা অতি জরুরী। আজকে সুফিয়া আক্তার স্বার্থান্বেষী মহলের সাথে হাত মিলিয়ে নিজের,স্বামীকে করেছে জিম্মি, করেছে সামাজিকভাবে হেয়। ইউসুফের পরিবার কাঁদছে চাপা কান্না বলতে পারছে না কাউকে কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তারা।

এই বিভাগের আরো খবর Posts